Dhaka ০১:৩৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গোপসাগরের লঘুচাপ, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

  • Reporter Name
  • Update Time : ১২:৪৭:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ জুন ২০২৩
  • 11

সূর্যোদয় প্রতিবেদক : বঙ্গোপসাগরের লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। একই সঙ্গে সক্রিয় মৌসুমি বায়ু ও লঘুচাপের প্রভাবে বঙ্গোপসাগরে বজ্র মেঘের সৃষ্টি হয়েছে। এজন্য দেশের চারটি সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত বহাল রেখেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।
মৌসুমি বায়ু দক্ষিণাঞ্চলে কিছুটা সক্রিয় থাকলে দেশের অন্যান্য অংশে এর সক্রিয়তা কম, তাই বৃষ্টিও অনেকটাই কমে গেছে। গতকাল শনিবার সকাল ৬টা থেকে রোববার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম, খুলনা ও বরিশাল বিভাগে কিছুটা বৃষ্টি হয়েছে। অন্যান্য বিভাগে বৃষ্টি ছিল খুবই সামান্য। এ সময়ে সবচেয়ে বেশি ৩৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে হাতিয়া ও টেকনাফে।

তবে আগামী তিনদিন বৃষ্টি বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।
আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন জানান, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উড়িষ্যা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূলীয় এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। মৌসুমি বায়ুর অক্ষ উত্তর প্রদেশের পূর্বাংশ, বিহার, লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল ও বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু দেশের দক্ষিণাঞ্চলে সক্রিয় এবং অন্যত্র তা মোটামুটি সক্রিয় আছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরের অন্যত্র প্রবল অবস্থায় রয়েছে এটি।

আজ ২৫ জুন রোববার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাস তুলে ধরে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। একই সঙ্গে খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে। এ সময়ে সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

বঙ্গোপসাগরের লঘুচাপ, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

Update Time : ১২:৪৭:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ জুন ২০২৩

সূর্যোদয় প্রতিবেদক : বঙ্গোপসাগরের লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। একই সঙ্গে সক্রিয় মৌসুমি বায়ু ও লঘুচাপের প্রভাবে বঙ্গোপসাগরে বজ্র মেঘের সৃষ্টি হয়েছে। এজন্য দেশের চারটি সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত বহাল রেখেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।
মৌসুমি বায়ু দক্ষিণাঞ্চলে কিছুটা সক্রিয় থাকলে দেশের অন্যান্য অংশে এর সক্রিয়তা কম, তাই বৃষ্টিও অনেকটাই কমে গেছে। গতকাল শনিবার সকাল ৬টা থেকে রোববার সকাল ৬টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম, খুলনা ও বরিশাল বিভাগে কিছুটা বৃষ্টি হয়েছে। অন্যান্য বিভাগে বৃষ্টি ছিল খুবই সামান্য। এ সময়ে সবচেয়ে বেশি ৩৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে হাতিয়া ও টেকনাফে।

তবে আগামী তিনদিন বৃষ্টি বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।
আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন জানান, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উড়িষ্যা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূলীয় এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। মৌসুমি বায়ুর অক্ষ উত্তর প্রদেশের পূর্বাংশ, বিহার, লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল ও বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু দেশের দক্ষিণাঞ্চলে সক্রিয় এবং অন্যত্র তা মোটামুটি সক্রিয় আছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরের অন্যত্র প্রবল অবস্থায় রয়েছে এটি।

আজ ২৫ জুন রোববার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাস তুলে ধরে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। একই সঙ্গে খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হতে পারে। এ সময়ে সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।