Dhaka ০১:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামের মুরাদপুর-অক্সিজেন সড়ক দিয়ে চলাচলে দুর্ভোগ

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৬:৩১:৫৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৪ জুন ২০২৩
  • 11

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম নগরীর মুরাদপুরে একটি কালভার্ট নির্মাণের জন্য বিগত চার মাস ধরে বন্ধ রয়েছে চট্টগ্রাম নগরীর মুরাদপুর-অক্সিজেন সড়ক। এতে চলাচলে দুর্ভোগ বেড়েছে সাধারণ লোকজনের। চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে খাল পুনর্খনন, সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় এ কালভার্ট নির্মাণ করা হচ্ছে।

গত ১৭ জানুয়ারি পুরনো কালভার্টটি ভেঙে নতুন করে নির্মাণের কাজ শুরু হয়। ওইদিন থেকে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

জানা গেছে, মুরাদপুর-অক্সিজেন সড়ক দিয়ে খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, উত্তর চট্টগ্রামের রাউজান, রাঙ্গুনিয়া, হাটহাজারী, ফটিকছড়ি এবং রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বাসিন্দা এবং নগরীর বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডের লোকজন চলাচল করেন। নগরীর নিউমার্কেট থেকে মুরাদপুর হয়ে হাটহাজারী ও রাউজানসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলার বিরতিহীন বাস চলাচল করে। ওইসব বাস এখন মুরাদপুর মোড় থেকে বিকল্প সড়ক ব্যবহার করে ছেড়ে যাচ্ছে। এতে যাত্রীদের সময় ও অর্থের ব্যয় বেড়েছে। ইতোমধ্যে কালভার্টটির নির্মাণকাজ শেষ হলেও যান চলাচলের জন্য খুলে দিতে আরও একমাস সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

নির্মাণ শুরুর আগে বলা হয়েছিলো দুই মাসের মধ্যে কাজ শেষ হবে। দুই মাসেও কালভার্ট নির্মাণের কাজ শেষ না হওয়ার জন্য কাজের ধীরগতির অভিযোগ তুলেছে স্থানীয় ও যাতায়াতকারীরা। তবে যথাসময়ে চট্টগ্রাম ওয়াসা, গ্যাসের পাইপ লাইন ও বিটিসিএল পোল না সরানোর কারণে নির্ধারিত সময়ে সড়ক ও কালভার্টের কাজ শেষ করে সড়কটি যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড । এখন কালভার্টটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। কিন্তু ওয়াসার পাইপলাইন জোড়া লাগানোর কাজ শেষ না হওয়ায় চার মাসের কষ্ট ও দুর্ভোগ আরও দীর্ঘ হচ্ছে।

চট্টগ্রামের একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় জনদুর্ভোগ বেড়েছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

চট্টগ্রামের মুরাদপুর-অক্সিজেন সড়ক দিয়ে চলাচলে দুর্ভোগ

Update Time : ০৬:৩১:৫৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৪ জুন ২০২৩

চট্টগ্রাম ব্যুরো : চট্টগ্রাম নগরীর মুরাদপুরে একটি কালভার্ট নির্মাণের জন্য বিগত চার মাস ধরে বন্ধ রয়েছে চট্টগ্রাম নগরীর মুরাদপুর-অক্সিজেন সড়ক। এতে চলাচলে দুর্ভোগ বেড়েছে সাধারণ লোকজনের। চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে খাল পুনর্খনন, সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় এ কালভার্ট নির্মাণ করা হচ্ছে।

গত ১৭ জানুয়ারি পুরনো কালভার্টটি ভেঙে নতুন করে নির্মাণের কাজ শুরু হয়। ওইদিন থেকে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

জানা গেছে, মুরাদপুর-অক্সিজেন সড়ক দিয়ে খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি, উত্তর চট্টগ্রামের রাউজান, রাঙ্গুনিয়া, হাটহাজারী, ফটিকছড়ি এবং রাঙ্গুনিয়া উপজেলার বাসিন্দা এবং নগরীর বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডের লোকজন চলাচল করেন। নগরীর নিউমার্কেট থেকে মুরাদপুর হয়ে হাটহাজারী ও রাউজানসহ বিভিন্ন জেলা-উপজেলার বিরতিহীন বাস চলাচল করে। ওইসব বাস এখন মুরাদপুর মোড় থেকে বিকল্প সড়ক ব্যবহার করে ছেড়ে যাচ্ছে। এতে যাত্রীদের সময় ও অর্থের ব্যয় বেড়েছে। ইতোমধ্যে কালভার্টটির নির্মাণকাজ শেষ হলেও যান চলাচলের জন্য খুলে দিতে আরও একমাস সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা।

নির্মাণ শুরুর আগে বলা হয়েছিলো দুই মাসের মধ্যে কাজ শেষ হবে। দুই মাসেও কালভার্ট নির্মাণের কাজ শেষ না হওয়ার জন্য কাজের ধীরগতির অভিযোগ তুলেছে স্থানীয় ও যাতায়াতকারীরা। তবে যথাসময়ে চট্টগ্রাম ওয়াসা, গ্যাসের পাইপ লাইন ও বিটিসিএল পোল না সরানোর কারণে নির্ধারিত সময়ে সড়ক ও কালভার্টের কাজ শেষ করে সড়কটি যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড । এখন কালভার্টটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। কিন্তু ওয়াসার পাইপলাইন জোড়া লাগানোর কাজ শেষ না হওয়ায় চার মাসের কষ্ট ও দুর্ভোগ আরও দীর্ঘ হচ্ছে।

চট্টগ্রামের একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় জনদুর্ভোগ বেড়েছে।