Dhaka ০১:১৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাতক্ষীরায় ৫টি মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-৩

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৭:৪২:৫৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৩
  • 828

মোঃ আজগার আলী, সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরায় ৫টি মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে পিতা ও পুত্রসহ তিনজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো সাত জন। ২৩শে এপ্রিল রবিবার রাত ৯টার দিকে সাতক্ষীরার বাইপাস সড়কের কামালনগরে সাবেক পৌর মেয়র আব্দুল জলিলের মাছের ঘেরের দক্ষিণ পাশে কফি শপ এন্ড চাইনিজ রেষ্ট্ররেন্ট এর সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও খুলনা ৫০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রোববার রাত ৯টায় সাতক্ষীরা শহরের বাইপাস সড়কের বকচরা এলাকার এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই আব্দুল বারী (৫৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত হয় তার পুত্র রেজওয়ান। পরে খুলনা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পথে রেজওয়ান (২৫) এর মৃত্যু হয়। নিহত আব্দুল বারী কলারোয়া উপজেলার নারানপুর গ্রামের আজিজ সরদারের পুত্র। আহতরা হলেন, খানপুর গ্রামের আনারুল ইসলামের পুত্র রায়হান(২৮), ওমর ফারুকের পুত্র মাহমুদ (২৫) এবং রইচপুর গ্রামের আব্দুল হাকিম (৩০)। স্থানীয়রা জানান, রাত ৯ টার দিকে বকচরা নামক স্থানে কফি শপের সামনে ৫টি মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই পিতা আব্দুল বারী মারা যান। আহতদের উদ্ধার করে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হলে তাদের অবস্থার অবনতি হওয়া তাদেরকে খুলনা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পথে রেজওয়ান মারা যান। স্থানীয়রা আরও জানান, রেজওয়ান ও তার পিতা কলারোয়া থেকে সাতক্ষীরা শহরে বেড়াতে আসছিল। পথিমধ্যে ঘটনাস্থলে পৌছালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সাতক্ষীরা সদর উপজেলার খানপুর গ্রামের আনিসুর রহমান জানান, তার আত্মীয় একই গ্রামের ওমর ফারুখের ছেলে মাহমুদ হোসেন তার এক আত্মীয়কে নিয়ে একটি ওয়ান টেষ্ট ডিসকভার মোটর সাইকেলে শহরে যাওয়ার সময় রবিবার রাত ৯টার দিকে বাইপাস সড়কের কামাননগরের সাবেক পৌর মেয়র আব্দুল জলিলের মাছের ঘেরের দক্ষিণ পাশে কফি এন্ড চাইনিজ রেষ্ট্ররেন্ট এর সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পালচার মোটর সাইকেলের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে বকচরা গ্রামে আত্মীয়ের বাড়িতে দাওয়াত খেতে আসা কলারোয়া উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের আব্দুল বারি ঘটনাস্থলে মারা যান। তার ছেলে রেজওয়ানকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনায় মারাত্মক জখম মাহমুদ হাসানকে প্রথমে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ ও পরে খুলনা ৫০০ শয্যা হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়। সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু ও কয়েকজন জখম হওয়ার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

Tag :

সাতক্ষীরায় ৫টি মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-৩

Update Time : ০৭:৪২:৫৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৩

মোঃ আজগার আলী, সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরায় ৫টি মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে পিতা ও পুত্রসহ তিনজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো সাত জন। ২৩শে এপ্রিল রবিবার রাত ৯টার দিকে সাতক্ষীরার বাইপাস সড়কের কামালনগরে সাবেক পৌর মেয়র আব্দুল জলিলের মাছের ঘেরের দক্ষিণ পাশে কফি শপ এন্ড চাইনিজ রেষ্ট্ররেন্ট এর সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও খুলনা ৫০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রোববার রাত ৯টায় সাতক্ষীরা শহরের বাইপাস সড়কের বকচরা এলাকার এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই আব্দুল বারী (৫৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত হয় তার পুত্র রেজওয়ান। পরে খুলনা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পথে রেজওয়ান (২৫) এর মৃত্যু হয়। নিহত আব্দুল বারী কলারোয়া উপজেলার নারানপুর গ্রামের আজিজ সরদারের পুত্র। আহতরা হলেন, খানপুর গ্রামের আনারুল ইসলামের পুত্র রায়হান(২৮), ওমর ফারুকের পুত্র মাহমুদ (২৫) এবং রইচপুর গ্রামের আব্দুল হাকিম (৩০)। স্থানীয়রা জানান, রাত ৯ টার দিকে বকচরা নামক স্থানে কফি শপের সামনে ৫টি মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই পিতা আব্দুল বারী মারা যান। আহতদের উদ্ধার করে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হলে তাদের অবস্থার অবনতি হওয়া তাদেরকে খুলনা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পথে রেজওয়ান মারা যান। স্থানীয়রা আরও জানান, রেজওয়ান ও তার পিতা কলারোয়া থেকে সাতক্ষীরা শহরে বেড়াতে আসছিল। পথিমধ্যে ঘটনাস্থলে পৌছালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সাতক্ষীরা সদর উপজেলার খানপুর গ্রামের আনিসুর রহমান জানান, তার আত্মীয় একই গ্রামের ওমর ফারুখের ছেলে মাহমুদ হোসেন তার এক আত্মীয়কে নিয়ে একটি ওয়ান টেষ্ট ডিসকভার মোটর সাইকেলে শহরে যাওয়ার সময় রবিবার রাত ৯টার দিকে বাইপাস সড়কের কামাননগরের সাবেক পৌর মেয়র আব্দুল জলিলের মাছের ঘেরের দক্ষিণ পাশে কফি এন্ড চাইনিজ রেষ্ট্ররেন্ট এর সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পালচার মোটর সাইকেলের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে বকচরা গ্রামে আত্মীয়ের বাড়িতে দাওয়াত খেতে আসা কলারোয়া উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের আব্দুল বারি ঘটনাস্থলে মারা যান। তার ছেলে রেজওয়ানকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনায় মারাত্মক জখম মাহমুদ হাসানকে প্রথমে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ ও পরে খুলনা ৫০০ শয্যা হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়। সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু ও কয়েকজন জখম হওয়ার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।