Dhaka ০৮:৩৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বৃষ্টির আশঙ্কার পড়েও বইমেলায় আনন্দে মেতেছিল শিশুরা

তপন তালুকদার: বইমেলায় সিসিমপুরের আনন্দে মেতেছিলো শিশুরা। আকাশে মেঘ আর বৃষ্টির শঙ্কার পড়েও শিশুরা ছিল উচ্ছ্বসিত।

২৩ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে অভিভাবকদের সঙ্গে মেলায় এসেছিল শিশুরা। এসময়ে বিকিকিনিতেও খুশি শিশু চত্বরের বিক্রয়কর্মীরা। বাংলা একাডেমির বিশেষ আয়োজনে শিশু প্রহরের এদিনে সকাল ১১টায় শিশু চত্বরের মঞ্চে উপস্থিত ছিল জনপ্রিয় কার্টুন সিসিমপুরের চরিত্র হালুম, ইকরি, শিকু ও টুকটুকি। তারা নাচ আর গানে মাতিয়ে তোলে শিশু প্রহর। গানে গানে শিশুদের শেখায় নিরাপদে সড়ক পারাপার সম্পর্কে। শিশুরাও ছিল সমান উচ্ছ্বসিত। শিশু প্রহরে সিসিমপুরের আয়োজন শেষ হতেই শিশু ও অভিভাবকরা ভিড় করেন স্টলগুলোতে। তবে রাতে বৃষ্টিতে কর্দমাক্ত শিশু চত্বরে ভোগান্তি হয়েছে অভিভাবক ও শিশুদের। অনেকটা পা টিপে টিপে হাঁটতে হয়েছে সবাইকে। ভোগান্তি থাকলেও বইমেলায় আসার আনন্দে কমতি ছিল না কারও।

অভিভাবকরা জানান, আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকায় বৃষ্টির শঙ্কা নিয়েই শিশুদের মেলায় নিয়ে এসেছেন তারা। সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়া শিশুদের নিয়ে বের হওয়ার সুযোগ মেলে না তাদের। মেলায় শিশুপ্রহরে আসা বাচ্চার বইয়ের সাথে বন্ধুত্ব রাখতে অভিবাবকরা তাদের বাচ্চাদের বই কিনে দিয়েছে।

শঙ্কা থাকলেও শেষমেশ উপস্থিতি ভালো থাকায় খুশি বইমেলার বিক্রয়কর্মীরা। মেলার শুরুতে মোটামুটি বিকিকিনি হলেও, শেষ মুহূর্তে বিকিকিনিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন তারা।

জানা গেছে, মেলার প্রথমদিকে খুব একটা বিক্রি না হলেও ২১ তারিখ থেকে বিক্রি বেড়েছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

শিক্ষার্থীদের রায় পর্যন্ত ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করার আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী

বৃষ্টির আশঙ্কার পড়েও বইমেলায় আনন্দে মেতেছিল শিশুরা

Update Time : ০৪:৫১:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

তপন তালুকদার: বইমেলায় সিসিমপুরের আনন্দে মেতেছিলো শিশুরা। আকাশে মেঘ আর বৃষ্টির শঙ্কার পড়েও শিশুরা ছিল উচ্ছ্বসিত।

২৩ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে অভিভাবকদের সঙ্গে মেলায় এসেছিল শিশুরা। এসময়ে বিকিকিনিতেও খুশি শিশু চত্বরের বিক্রয়কর্মীরা। বাংলা একাডেমির বিশেষ আয়োজনে শিশু প্রহরের এদিনে সকাল ১১টায় শিশু চত্বরের মঞ্চে উপস্থিত ছিল জনপ্রিয় কার্টুন সিসিমপুরের চরিত্র হালুম, ইকরি, শিকু ও টুকটুকি। তারা নাচ আর গানে মাতিয়ে তোলে শিশু প্রহর। গানে গানে শিশুদের শেখায় নিরাপদে সড়ক পারাপার সম্পর্কে। শিশুরাও ছিল সমান উচ্ছ্বসিত। শিশু প্রহরে সিসিমপুরের আয়োজন শেষ হতেই শিশু ও অভিভাবকরা ভিড় করেন স্টলগুলোতে। তবে রাতে বৃষ্টিতে কর্দমাক্ত শিশু চত্বরে ভোগান্তি হয়েছে অভিভাবক ও শিশুদের। অনেকটা পা টিপে টিপে হাঁটতে হয়েছে সবাইকে। ভোগান্তি থাকলেও বইমেলায় আসার আনন্দে কমতি ছিল না কারও।

অভিভাবকরা জানান, আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকায় বৃষ্টির শঙ্কা নিয়েই শিশুদের মেলায় নিয়ে এসেছেন তারা। সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়া শিশুদের নিয়ে বের হওয়ার সুযোগ মেলে না তাদের। মেলায় শিশুপ্রহরে আসা বাচ্চার বইয়ের সাথে বন্ধুত্ব রাখতে অভিবাবকরা তাদের বাচ্চাদের বই কিনে দিয়েছে।

শঙ্কা থাকলেও শেষমেশ উপস্থিতি ভালো থাকায় খুশি বইমেলার বিক্রয়কর্মীরা। মেলার শুরুতে মোটামুটি বিকিকিনি হলেও, শেষ মুহূর্তে বিকিকিনিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন তারা।

জানা গেছে, মেলার প্রথমদিকে খুব একটা বিক্রি না হলেও ২১ তারিখ থেকে বিক্রি বেড়েছে।