Dhaka ০২:২৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রমজানে পণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে পণ্য আমদানি করছে এস আলম গ্রুপ

মোঃ বেলাল হোসেন, চট্টগ্রাম: আসন্ন রমজানে মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্য পণ্যের বাজার সহনশীল রাখতে ১২ লাখ টন ভোগপণ্য আমদানি করছে এস আলম গ্রুপ। এস আলম গ্রুপ ইতিমধ্যে কয়েকশ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগে প্রায় বারো লক্ষ টনের বেশি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি করছে , যা রমজান মাসে দেশের মোট ভোগ্য পণ্য চাহিদার প্রায় ৫০ শতাংশ। এসব পণ্যের মধ্যে রয়েছে চিনি, গম, তেল , ছোলা ও ডাল ইত্যাদি। দেশীয় বাজারে তেল গম ও চিনির চাহিদার যথাক্রমে ২০, ৩০, ৩৫ শতাংশ পূরণ করে আসছে এস আলম গ্রুপ। ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠানটি এ বছরে ৫০ শতাংশ উন্নীত করতে কাজ করছে। প্রত্যেক বছরের ন্যায় এই বছরও দেশের সাধারণ মানুষের কথা ভেবে রমজানে বিপুল পরিমাণ ভোগ্য পণ্যের আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এস আলম গ্রুপ রমজানে বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রায় ৬ লক্ষ ৪১ হাজার ৩ শ টন চিনি আমদানি করছে। যা এই রমজান মাসের চাহিদার দ্বিগুণ এর চেয়ে বেশি। ভোজ্যতেলের চাহিদার প্রায় ২২ লাখ টনের মধ্যে সারাদেশে রমজানে তেলের চাহিদা প্রায় ৩ লাখ টনের মতো। এস আলম গ্রুপ রমজানে ২ লাখ ৫৮ হাজার টন আমদানি করছে। যা রমজানে চাহিদার ৮৬ শতাংশ। দেশীয় বাজারে প্রতি মাসে গমের প্রয়োজন পড়ে প্রায় ৫ লাখ ৫৮ হাজার টন। এস আলম গ্রুপ রমজানে বাজার স্থিতিশীল রাখতে আমদানি করছে ১ লাখ ৭৮ হাজার টন। যা রমজানের চাহিদার ৩৪ শতাংশ। দেশে মসুর ডালের চাহিদা রয়েছে প্রায় ৬ লাখ টন , যার মাসিক চাহিদার প্রায় ৫০ হাজার টন। রমজানে মসুর ডালের চাহিদা থাকে প্রায় ১ লাখ টন। এস আলম গ্রুপ রমজানে ৫০ হাজার টন ডাল আমদানি করছে। যা রমজানের চাহিদার ৫০ শতাংশ। রমজানে ছোলার চাহিদা থাকে প্রায় ৯০ হাজার টনের মতো। এই রমজানে ৫০ হাজার টন ছোলা আমদানি করছে এস আলম গ্রুপ। যা রমজানের ৫৫ শতাংশ চাহিদা পূরণ করবে। এস আলম গ্রুপ এসব উদ্যোগ গ্রহণ করেছে নিত্য পণ্যের বাজারে পণ্যের মূল্য সহনশীল ও স্থিতিশীল রাখার জন্য। এস আলম গ্রুপ হতে জানা গেছে, প্রতি বছরের মতো এবারও আমরা রমজানের মোট চাহিদার সিংহভাগ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য আমদানির উদ্যোগ নিয়েছি। রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যের দাম মানুষের ক্রয় সক্ষমতার নাগালে রাখতে সরকারের লক্ষ্য পূরণ করতে এস আলম গ্রুপ কাজ করে যাচ্ছে। যদিও চাহিদার বিপরীতে রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ঘাটতি হলে আরো পণ্য আমদানির পদক্ষেপ নিবে এস আলম গ্রুপ। এস আলম গ্রুপ সাধারণ মানুষের কথা ভেবে রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যের দাম সহনীয় রাখতে এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

দাঁতমারা সেলফি রোড়ে গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় নিহত ১

রমজানে পণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে পণ্য আমদানি করছে এস আলম গ্রুপ

Update Time : ০১:৪২:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২৪

মোঃ বেলাল হোসেন, চট্টগ্রাম: আসন্ন রমজানে মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় ভোগ্য পণ্যের বাজার সহনশীল রাখতে ১২ লাখ টন ভোগপণ্য আমদানি করছে এস আলম গ্রুপ। এস আলম গ্রুপ ইতিমধ্যে কয়েকশ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগে প্রায় বারো লক্ষ টনের বেশি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য আমদানি করছে , যা রমজান মাসে দেশের মোট ভোগ্য পণ্য চাহিদার প্রায় ৫০ শতাংশ। এসব পণ্যের মধ্যে রয়েছে চিনি, গম, তেল , ছোলা ও ডাল ইত্যাদি। দেশীয় বাজারে তেল গম ও চিনির চাহিদার যথাক্রমে ২০, ৩০, ৩৫ শতাংশ পূরণ করে আসছে এস আলম গ্রুপ। ইতিমধ্যে প্রতিষ্ঠানটি এ বছরে ৫০ শতাংশ উন্নীত করতে কাজ করছে। প্রত্যেক বছরের ন্যায় এই বছরও দেশের সাধারণ মানুষের কথা ভেবে রমজানে বিপুল পরিমাণ ভোগ্য পণ্যের আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এস আলম গ্রুপ রমজানে বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রায় ৬ লক্ষ ৪১ হাজার ৩ শ টন চিনি আমদানি করছে। যা এই রমজান মাসের চাহিদার দ্বিগুণ এর চেয়ে বেশি। ভোজ্যতেলের চাহিদার প্রায় ২২ লাখ টনের মধ্যে সারাদেশে রমজানে তেলের চাহিদা প্রায় ৩ লাখ টনের মতো। এস আলম গ্রুপ রমজানে ২ লাখ ৫৮ হাজার টন আমদানি করছে। যা রমজানে চাহিদার ৮৬ শতাংশ। দেশীয় বাজারে প্রতি মাসে গমের প্রয়োজন পড়ে প্রায় ৫ লাখ ৫৮ হাজার টন। এস আলম গ্রুপ রমজানে বাজার স্থিতিশীল রাখতে আমদানি করছে ১ লাখ ৭৮ হাজার টন। যা রমজানের চাহিদার ৩৪ শতাংশ। দেশে মসুর ডালের চাহিদা রয়েছে প্রায় ৬ লাখ টন , যার মাসিক চাহিদার প্রায় ৫০ হাজার টন। রমজানে মসুর ডালের চাহিদা থাকে প্রায় ১ লাখ টন। এস আলম গ্রুপ রমজানে ৫০ হাজার টন ডাল আমদানি করছে। যা রমজানের চাহিদার ৫০ শতাংশ। রমজানে ছোলার চাহিদা থাকে প্রায় ৯০ হাজার টনের মতো। এই রমজানে ৫০ হাজার টন ছোলা আমদানি করছে এস আলম গ্রুপ। যা রমজানের ৫৫ শতাংশ চাহিদা পূরণ করবে। এস আলম গ্রুপ এসব উদ্যোগ গ্রহণ করেছে নিত্য পণ্যের বাজারে পণ্যের মূল্য সহনশীল ও স্থিতিশীল রাখার জন্য। এস আলম গ্রুপ হতে জানা গেছে, প্রতি বছরের মতো এবারও আমরা রমজানের মোট চাহিদার সিংহভাগ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য আমদানির উদ্যোগ নিয়েছি। রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যের দাম মানুষের ক্রয় সক্ষমতার নাগালে রাখতে সরকারের লক্ষ্য পূরণ করতে এস আলম গ্রুপ কাজ করে যাচ্ছে। যদিও চাহিদার বিপরীতে রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ঘাটতি হলে আরো পণ্য আমদানির পদক্ষেপ নিবে এস আলম গ্রুপ। এস আলম গ্রুপ সাধারণ মানুষের কথা ভেবে রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যের দাম সহনীয় রাখতে এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।