Dhaka ১২:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

র‌্যাব-৭ এর অভিযানে দাঁতমারায় ৫৬৯ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক ১

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৮:২৮:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মার্চ ২০২৩
  • 1186

সূর্যোদয় ডেস্ক : চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার ভূজপুর থানার অন্তর্ভুক্ত ২ নং দাঁতমারা ইউনিয়নের হোসেনেরখীল গ্রাম থেকে ৫৬৯ বোতল ফেন্সিডিলসহ আলমগীর হোসেন নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে র‍্যাব আটক করেছে। র‍্যাবের পাঠানো তথ্যে জানা গেছে, র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী চট্টগ্রাম জেলার ভুজপুর থানাধীন দাঁতমারা এলাকা হোসেনেরখীল গ্রামের একটি বসতঘরে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে মজুদ করেছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৮ মার্চ শনিবার সকালে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রামের একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে পৌছালে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে একজন ব্যক্তি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্ঠা করলে র‌্যাব সদস্যরা আসামী আলমগীর হোসেন (৩০), পিতা- হাবিব মিয়া, সাং- হোসেনেরখিল, থানা- ভুজপুর, জেলা- চট্টগ্রামকে আটক করতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ সে স্বীকার করে তার হেফাজতে মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল রয়েছে যা সে গোয়ালঘরে মজুদ রেখেছে। পরবর্তীতে আটককৃত আসামীর দেখানো গোয়ালঘর হতে আসামীর নিজ হাতে বের করে দেয়া মতে ৩টি প্লাষ্টিকের বস্তার ভিতর হতে মোট ৫৬৯ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় সে পেশায় একজন কাভার্ড ভ্যান চালক। ড্রাইভিং পেশার আড়ালে সে কাভার্ড ভ্যানে অন্যান্য মালামালের সাথে সু-কৌশলে মাদক পরিবহণ করত যেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বুঝতে না পারে। সে সীমান্তবর্তী এলাকা হতে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে তার বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত জায়গায় সংরক্ষণ করত এবং পরে চট্টগ্রাম, কুমিল্লা এবং কখনও কখনও ঢাকায় উচ্চ মূল্যে পাইকারী ও খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রয় করত। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মূল্য ৬ লক্ষ টাকা। মাদক সম্রাট আলমগীর ভূজপুর ও এর আশেপাশের এলাকাকে মাদকের অভয়ারণ্যে পরিণত করেছিল। তার প্রধান লক্ষ্য ছিল উঠতি বয়সের ছেলে-মেয়েদের মধ্যে মাদক ছড়িয়ে দেয়া। ঐ এলাকার মানুষ তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পেত না। উল্লেখ্য সিডিএমএস পর্যালোচনা করে গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগরীর, মিরপুর মডেল থানার মাদকদ্রব্য সংক্রান্ত ০১ মামলা পাওয়া যায়। স্থানীয় একটি সুত্র সূর্যোদয়কে জানায় আটককৃত ফেন্সিডিলগুলো দাঁতমারার মাদক সম্রাট ইসলামপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে সবুজ মিয়ার। র‍্যাবের অভিযানের পর মাদক সম্রাট সবুজ র‍্যাবকে সন্ধানদাতা হিসেবে গ্রামবাসীকে সন্দেহ করে নিরীহ মানুষজনের উপর হামলা চালাচ্ছে প্রতিদিন

Tag :

র‌্যাব-৭ এর অভিযানে দাঁতমারায় ৫৬৯ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক ১

Update Time : ০৮:২৮:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মার্চ ২০২৩

সূর্যোদয় ডেস্ক : চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার ভূজপুর থানার অন্তর্ভুক্ত ২ নং দাঁতমারা ইউনিয়নের হোসেনেরখীল গ্রাম থেকে ৫৬৯ বোতল ফেন্সিডিলসহ আলমগীর হোসেন নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে র‍্যাব আটক করেছে। র‍্যাবের পাঠানো তথ্যে জানা গেছে, র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী চট্টগ্রাম জেলার ভুজপুর থানাধীন দাঁতমারা এলাকা হোসেনেরখীল গ্রামের একটি বসতঘরে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে মজুদ করেছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৮ মার্চ শনিবার সকালে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রামের একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে পৌছালে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে একজন ব্যক্তি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্ঠা করলে র‌্যাব সদস্যরা আসামী আলমগীর হোসেন (৩০), পিতা- হাবিব মিয়া, সাং- হোসেনেরখিল, থানা- ভুজপুর, জেলা- চট্টগ্রামকে আটক করতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ সে স্বীকার করে তার হেফাজতে মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল রয়েছে যা সে গোয়ালঘরে মজুদ রেখেছে। পরবর্তীতে আটককৃত আসামীর দেখানো গোয়ালঘর হতে আসামীর নিজ হাতে বের করে দেয়া মতে ৩টি প্লাষ্টিকের বস্তার ভিতর হতে মোট ৫৬৯ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধারসহ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় সে পেশায় একজন কাভার্ড ভ্যান চালক। ড্রাইভিং পেশার আড়ালে সে কাভার্ড ভ্যানে অন্যান্য মালামালের সাথে সু-কৌশলে মাদক পরিবহণ করত যেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বুঝতে না পারে। সে সীমান্তবর্তী এলাকা হতে মাদকদ্রব্য সংগ্রহ করে তার বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত জায়গায় সংরক্ষণ করত এবং পরে চট্টগ্রাম, কুমিল্লা এবং কখনও কখনও ঢাকায় উচ্চ মূল্যে পাইকারী ও খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রয় করত। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্যের আনুমানিক মূল্য ৬ লক্ষ টাকা। মাদক সম্রাট আলমগীর ভূজপুর ও এর আশেপাশের এলাকাকে মাদকের অভয়ারণ্যে পরিণত করেছিল। তার প্রধান লক্ষ্য ছিল উঠতি বয়সের ছেলে-মেয়েদের মধ্যে মাদক ছড়িয়ে দেয়া। ঐ এলাকার মানুষ তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পেত না। উল্লেখ্য সিডিএমএস পর্যালোচনা করে গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে ঢাকা মহানগরীর, মিরপুর মডেল থানার মাদকদ্রব্য সংক্রান্ত ০১ মামলা পাওয়া যায়। স্থানীয় একটি সুত্র সূর্যোদয়কে জানায় আটককৃত ফেন্সিডিলগুলো দাঁতমারার মাদক সম্রাট ইসলামপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে সবুজ মিয়ার। র‍্যাবের অভিযানের পর মাদক সম্রাট সবুজ র‍্যাবকে সন্ধানদাতা হিসেবে গ্রামবাসীকে সন্দেহ করে নিরীহ মানুষজনের উপর হামলা চালাচ্ছে প্রতিদিন