Dhaka ০১:২১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজধানীর দুই সিটির কোরবানির হাটে প্রস্তুতি সম্পন্ন

  • Reporter Name
  • Update Time : ১১:৪৯:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০২৩
  • 9

সূর্যোদয় প্রতিবেদক : কোরবানির ঈদ উপলক্ষে রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশন এলাকায় বসছে ১৯টি কোরবানির পশুর হাট। আগামী ২৯ জুন বৃহস্পতিবার দেশে পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। এই মূহুর্তে ইজারা হওয়া হাটের জায়গাগুলোতে কর্মব্যস্ত সময় পার করছেন শ্রমিকেরা। জানা গেছে, ঢাকা মহানগরে এবার মোট ১৭টি অস্থায়ী এবং ২টি স্থায়ী পশুর হাটের ইজারা চূড়ান্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় একটি স্থায়ীসহ মোট ৯টি হাট। আর দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় একটি স্থায়ীসহ মোট ১০টি হাট।

ঈদের চার দিন আগে অর্থাৎ আগামী ২৫ জুন রোববার থেকে এসব হাটে আনুষ্ঠানিকভাবে পশু বেচাকেনা শুরু হবে। পশুর হাটগুলোতে এখন চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। এসব হাটে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে লাখ লাখ পশু আনা শুরু হয়ে গেছে। হাটগুলোর ইজারাদারেরা এরিমধ্যে বেশিরভাগ প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। এছাড়া পুলিশ প্রশাসন এবং সিটি করপোরেশনও নিরাপত্তাসহ অন্যান্য আয়োজন সম্পন্ন করেছেন বলে জানা গেছে।

গত ২১ জুন বুধবার থেকে হাটে পশুর ট্রাক আসতে শুরু করেছেন। এখন পর্যন্ত কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ, মেহেরপুর, সিরাজগঞ্জ ও বগুড়া থেকে কোরবানির পশু আসা শুরু করেছে। এবারও বিদেশ থেকে পশু আমদানির কোনও প্রয়োজন নেই বিধায় হাটগুলোতে উঠছে দেশের উৎপাদিত গবাদিপশু। এসব পশুর মধ্যে অধিকাংশই দেশীয় গরু। ছাগল নেই বললেই চলে। তবে, হাটে পশু উঠতে শুরু করলেও ক্রেতা সমাগম তেমন নেই বললেই চলে। যেসব ক্রেতা হাটে ভিড় করছেন, তারা কেবল পশু দেখছেন এবং দাম যাচাই করছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ জুন বুধবার সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, এ বছর কোরবানির পশুর সম্ভাব্য চাহিদা ১ কোটি ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৭৩৯টি। এরমধ্যে কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর সংখ্যা ১ কোটি ২৫ লাখ ৩৬ হাজার। সে হিসেবে এবার ২১ লাখ ৪১ হাজার ৫৯৪টি পশু উদ্বৃত্ত আছে। গত চার-পাঁচ বছরের মতো এবারও দেশে উৎপাদিত গবাদিপশু দিয়েই কোরবানির চাহিদা মেটানো সম্ভব হবে। এ বছর কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর মধ্যে ৪৮ লাখ ৪৩ হাজার ৭৫২টি গরু-মহিষ, ৭৬ লাখ ৯০ হাজার ছাগল-ভেড়া এবং ২ হাজার ৫৮১টি অন্যান্য প্রজাতির গবাদিপশু। কোরবানিযোগ্য মোট গবাদিপশুর সংখ্যার মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৮ লাখ ৯৫ হাজার ৪৫৪টি, চট্টগ্রাম বিভাগে ২০ লাখ ৫৩ হাজার ১২৮টি, রাজশাহী বিভাগে ৪৫ লাখ ১১ হাজার ৬১৪টি, খুলনা বিভাগে ১৫ লাখ ১১ হাজার ৭০৮টি, বরিশাল বিভাগে ৪ লাখ ৯৩ হাজার ২০৬টি, সিলেট বিভাগে ৪ লাখ ১০ হাজার ২২৫টি, রংপুর বিভাগে ১৯ লাখ ৬২ হাজার ৯৫১টি এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ৬ লাখ ৯৮ হাজার ৪৭টি কোরবানিযোগ্য গবাদিপশু রয়েছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

নিউইয়র্কে সেইভ দ্য পিপল’র উদ্যোগে হালাল খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

রাজধানীর দুই সিটির কোরবানির হাটে প্রস্তুতি সম্পন্ন

Update Time : ১১:৪৯:২৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ জুন ২০২৩

সূর্যোদয় প্রতিবেদক : কোরবানির ঈদ উপলক্ষে রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশন এলাকায় বসছে ১৯টি কোরবানির পশুর হাট। আগামী ২৯ জুন বৃহস্পতিবার দেশে পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। এই মূহুর্তে ইজারা হওয়া হাটের জায়গাগুলোতে কর্মব্যস্ত সময় পার করছেন শ্রমিকেরা। জানা গেছে, ঢাকা মহানগরে এবার মোট ১৭টি অস্থায়ী এবং ২টি স্থায়ী পশুর হাটের ইজারা চূড়ান্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় একটি স্থায়ীসহ মোট ৯টি হাট। আর দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় একটি স্থায়ীসহ মোট ১০টি হাট।

ঈদের চার দিন আগে অর্থাৎ আগামী ২৫ জুন রোববার থেকে এসব হাটে আনুষ্ঠানিকভাবে পশু বেচাকেনা শুরু হবে। পশুর হাটগুলোতে এখন চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। এসব হাটে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে লাখ লাখ পশু আনা শুরু হয়ে গেছে। হাটগুলোর ইজারাদারেরা এরিমধ্যে বেশিরভাগ প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন। এছাড়া পুলিশ প্রশাসন এবং সিটি করপোরেশনও নিরাপত্তাসহ অন্যান্য আয়োজন সম্পন্ন করেছেন বলে জানা গেছে।

গত ২১ জুন বুধবার থেকে হাটে পশুর ট্রাক আসতে শুরু করেছেন। এখন পর্যন্ত কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহ, মেহেরপুর, সিরাজগঞ্জ ও বগুড়া থেকে কোরবানির পশু আসা শুরু করেছে। এবারও বিদেশ থেকে পশু আমদানির কোনও প্রয়োজন নেই বিধায় হাটগুলোতে উঠছে দেশের উৎপাদিত গবাদিপশু। এসব পশুর মধ্যে অধিকাংশই দেশীয় গরু। ছাগল নেই বললেই চলে। তবে, হাটে পশু উঠতে শুরু করলেও ক্রেতা সমাগম তেমন নেই বললেই চলে। যেসব ক্রেতা হাটে ভিড় করছেন, তারা কেবল পশু দেখছেন এবং দাম যাচাই করছেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ জুন বুধবার সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, এ বছর কোরবানির পশুর সম্ভাব্য চাহিদা ১ কোটি ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৭৩৯টি। এরমধ্যে কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর সংখ্যা ১ কোটি ২৫ লাখ ৩৬ হাজার। সে হিসেবে এবার ২১ লাখ ৪১ হাজার ৫৯৪টি পশু উদ্বৃত্ত আছে। গত চার-পাঁচ বছরের মতো এবারও দেশে উৎপাদিত গবাদিপশু দিয়েই কোরবানির চাহিদা মেটানো সম্ভব হবে। এ বছর কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর মধ্যে ৪৮ লাখ ৪৩ হাজার ৭৫২টি গরু-মহিষ, ৭৬ লাখ ৯০ হাজার ছাগল-ভেড়া এবং ২ হাজার ৫৮১টি অন্যান্য প্রজাতির গবাদিপশু। কোরবানিযোগ্য মোট গবাদিপশুর সংখ্যার মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৮ লাখ ৯৫ হাজার ৪৫৪টি, চট্টগ্রাম বিভাগে ২০ লাখ ৫৩ হাজার ১২৮টি, রাজশাহী বিভাগে ৪৫ লাখ ১১ হাজার ৬১৪টি, খুলনা বিভাগে ১৫ লাখ ১১ হাজার ৭০৮টি, বরিশাল বিভাগে ৪ লাখ ৯৩ হাজার ২০৬টি, সিলেট বিভাগে ৪ লাখ ১০ হাজার ২২৫টি, রংপুর বিভাগে ১৯ লাখ ৬২ হাজার ৯৫১টি এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ৬ লাখ ৯৮ হাজার ৪৭টি কোরবানিযোগ্য গবাদিপশু রয়েছে।