Dhaka ০৪:৫০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দাঁতমারায় চলছে মাটি কাটার উৎসব, ব্যবস্থা নিচ্ছে সহকারী কমিশনার (ভূমি)

  • Reporter Name
  • Update Time : ০১:৪৬:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪
  • 28

সূর্যোদয় প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার দাঁতমারায় অবাধে চলছে মাটি কাটার মহোৎসব। এখানে মাটি মাফিয়াদের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেনা ফসলি উর্বর জমি। মাটি কেটে বানানো হচ্ছে গভীর পুকুর ও বসতভিটা। এর ফলে এলাকার উর্বর আবাদি জমির পরিমাণ কমছে। উপজেলার দাঁতমারা ইউনিয়নের দাঁতমারা বাজারের উত্তর পাশে সাইফুল ইসলামের জমিতে একটি এক্সেভেটর ও সাতটি ট্রাক দিয়ে এই মাটি কাটার মহোৎসব চলছে।

জানাগেছে, সরকারি আইনকে বৃদ্ধাবৃঙ্গুলি দেখিয়ে আবাদী জমির শ্রেনি পরিবর্তন করে পুকুর খননের মহোৎসবে মেতেছে এই মাটি মাফিয়ারা। এই স্কেভেটরটি যিনি ভাড়ায় এনে এই মাটি কাটার ঠিকাদারী করছে তার নাম আরাফাত হোসেন রানা, পিতা মৃত আব্দুল কুদ্দুস সওদাগর, গ্রাম: পূর্ব দাঁতমারা (মাস্টার পাড়া), পোস্ট অফিস দাঁতমারা, থানা: ভোজপুর ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে, তিনি এলাকায় কিশোর গ্যাং লিডার (বড় ভাই) হিসেবে পরিচিত।

সে দীর্ঘদিন যাবত মাটি কাটা ও মাটি সরবরাহের ঠিকাদারি করে আসছে। এলাকাবাসীর আরোও অভিযোগ করেন, এখানে দিনরাত মাটি কাটা চলে। মাটি পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ভারী ড্রাম ট্রাক চলাচলের কারণে রাস্তা ভেঙে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ছে এতে সরকারের কোটি কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে। এছাড়াও গাড়ির শব্দ ও ধুলার কারণে বাইরে বের হওয়া যায় না। ১০ থেকে ১৫ ফুট গভীর গর্ত করার ফলে আশপাশের আবাদি জমি ও বসত বাড়ি ভাঙনের হুমকিতে পড়েছে।

মাটি ব্যবসায়ীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তারা প্রকাশ্যে কিছু বলার সাহস পান না। মাঝে মাঝে পুলিশ ও কথিত সাংবাদিক এসে শুধুছবিই তোলেন কিন্তু কোন প্রতিকার হয় না।

ফটিকছড়ি উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মেজবাহ উদ্দিন জানিয়েছেন, বিষয়টি আমি জানলাম শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয় হচ্ছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

চট্টগ্রামে কোটাবিরোধী শিক্ষার্থী-ছাত্রলীগ সংঘর্যে রণক্ষেত্র ষোলশহর ষ্টেশন

দাঁতমারায় চলছে মাটি কাটার উৎসব, ব্যবস্থা নিচ্ছে সহকারী কমিশনার (ভূমি)

Update Time : ০১:৪৬:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪

সূর্যোদয় প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার দাঁতমারায় অবাধে চলছে মাটি কাটার মহোৎসব। এখানে মাটি মাফিয়াদের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেনা ফসলি উর্বর জমি। মাটি কেটে বানানো হচ্ছে গভীর পুকুর ও বসতভিটা। এর ফলে এলাকার উর্বর আবাদি জমির পরিমাণ কমছে। উপজেলার দাঁতমারা ইউনিয়নের দাঁতমারা বাজারের উত্তর পাশে সাইফুল ইসলামের জমিতে একটি এক্সেভেটর ও সাতটি ট্রাক দিয়ে এই মাটি কাটার মহোৎসব চলছে।

জানাগেছে, সরকারি আইনকে বৃদ্ধাবৃঙ্গুলি দেখিয়ে আবাদী জমির শ্রেনি পরিবর্তন করে পুকুর খননের মহোৎসবে মেতেছে এই মাটি মাফিয়ারা। এই স্কেভেটরটি যিনি ভাড়ায় এনে এই মাটি কাটার ঠিকাদারী করছে তার নাম আরাফাত হোসেন রানা, পিতা মৃত আব্দুল কুদ্দুস সওদাগর, গ্রাম: পূর্ব দাঁতমারা (মাস্টার পাড়া), পোস্ট অফিস দাঁতমারা, থানা: ভোজপুর ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে, তিনি এলাকায় কিশোর গ্যাং লিডার (বড় ভাই) হিসেবে পরিচিত।

সে দীর্ঘদিন যাবত মাটি কাটা ও মাটি সরবরাহের ঠিকাদারি করে আসছে। এলাকাবাসীর আরোও অভিযোগ করেন, এখানে দিনরাত মাটি কাটা চলে। মাটি পরিবহনের কাজে ব্যবহৃত ভারী ড্রাম ট্রাক চলাচলের কারণে রাস্তা ভেঙে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ছে এতে সরকারের কোটি কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে। এছাড়াও গাড়ির শব্দ ও ধুলার কারণে বাইরে বের হওয়া যায় না। ১০ থেকে ১৫ ফুট গভীর গর্ত করার ফলে আশপাশের আবাদি জমি ও বসত বাড়ি ভাঙনের হুমকিতে পড়েছে।

মাটি ব্যবসায়ীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তারা প্রকাশ্যে কিছু বলার সাহস পান না। মাঝে মাঝে পুলিশ ও কথিত সাংবাদিক এসে শুধুছবিই তোলেন কিন্তু কোন প্রতিকার হয় না।

ফটিকছড়ি উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মেজবাহ উদ্দিন জানিয়েছেন, বিষয়টি আমি জানলাম শীঘ্রই ব্যবস্থা নেয় হচ্ছে।