Dhaka ০৭:১৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দাঁতমারা যুবলীগের সাঃ সম্পাদক জামালকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয় জনতা

  • Reporter Name
  • Update Time : ০২:১৯:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪
  • 35

সূর্যোদয় প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার দাঁতমারা যুবলীগের সাঃ সম্পাদক জামালকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয় জনতা।

জানাগেছে, আজ ২৮ জানুয়ারি রোববার সকাল ১১টায় দাঁতমারার ৭নং ওয়ার্ডের বটতলী বাজারে চাঁদা আদায়ের সময় ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিনকে গণপিটুনি দেয় স্থানীয় জনতা। এ সময় তার কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের টাকা ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। জামাল উদ্দিনকে গণপিটুনি দেয়ার সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে আসেননি বলে জানা গেছে। ইউনিয়নের বেতুয়া দাউদের টিলার বাসিন্দা আব্দুল খালেক প্রকাশ ননা মিয়ার সন্তান জামাল উদ্দিন চাঁদাবাজি ও বনবিভাগের জমি দখল করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আসছেন দীর্ঘদিন যাবত। স্থানীয়রা জানান এলাকার মূর্তিমান আতংকের নাম সন্ত্রাসী জামাল উদ্দিন। জামাল উদ্দিন বন বিভাগের জমি দখল করে সেই জমি সাধারণ মানুষের নিকট বিক্রি করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। স্থানীয়রা জানান, সরকারি জমি দখলের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত এই জামাল উদ্দিন। এছাড়াও বয়স্ক ভাতা কার্ড, সরকারী ঘর পাইয়ে দিবে বলে এলাকার অসহায়দের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় ২০ লক্ষ টাকা। তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

বেতুয়া, বড় বেতুয়া, দাঁতমারা বাজার, শান্তির হাট, হোসেন্যারখীল, বান্দরমারা ও গ্রামপাড়া এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজি করে আসছে এই জামাল উদ্দিন। বিশেষ করে বেতুয়া ও দাঁতমারা বনবিটের সরকারী জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করে আবার তা বিক্রি করে তার মাসিক আয় ছিলো ৫ লাখ টাকা। চাঁদা আদায়ের বিস্তর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। যখন তখন সশস্ত্র মহড়া দিয়ে ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করে জামাল উদ্দিন। এই জামালের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির ভয়ংকর চিত্র তুলে ধরেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

সুত্র জানায়, বেতুয়া ও দাঁতমারার বনবিভাগের সরকারী অফিসগুলোতে আথিপত্য ধরে রাখতে এলাকায় প্রায়ই নিরীহ মানুষদের মারধর করতো জামাল। বছরের পর বছর এখানকার এই গডফাদার জামাল উদ্দিন গ্রুপ ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

ঢাবিতে পুলিশের ধাওয়ায় ছত্রভঙ্গ আন্দোলনকারীরা

দাঁতমারা যুবলীগের সাঃ সম্পাদক জামালকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয় জনতা

Update Time : ০২:১৯:২৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪

সূর্যোদয় প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার দাঁতমারা যুবলীগের সাঃ সম্পাদক জামালকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয় জনতা।

জানাগেছে, আজ ২৮ জানুয়ারি রোববার সকাল ১১টায় দাঁতমারার ৭নং ওয়ার্ডের বটতলী বাজারে চাঁদা আদায়ের সময় ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিনকে গণপিটুনি দেয় স্থানীয় জনতা। এ সময় তার কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের টাকা ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। জামাল উদ্দিনকে গণপিটুনি দেয়ার সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে আসেননি বলে জানা গেছে। ইউনিয়নের বেতুয়া দাউদের টিলার বাসিন্দা আব্দুল খালেক প্রকাশ ননা মিয়ার সন্তান জামাল উদ্দিন চাঁদাবাজি ও বনবিভাগের জমি দখল করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আসছেন দীর্ঘদিন যাবত। স্থানীয়রা জানান এলাকার মূর্তিমান আতংকের নাম সন্ত্রাসী জামাল উদ্দিন। জামাল উদ্দিন বন বিভাগের জমি দখল করে সেই জমি সাধারণ মানুষের নিকট বিক্রি করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। স্থানীয়রা জানান, সরকারি জমি দখলের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত এই জামাল উদ্দিন। এছাড়াও বয়স্ক ভাতা কার্ড, সরকারী ঘর পাইয়ে দিবে বলে এলাকার অসহায়দের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় ২০ লক্ষ টাকা। তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।

বেতুয়া, বড় বেতুয়া, দাঁতমারা বাজার, শান্তির হাট, হোসেন্যারখীল, বান্দরমারা ও গ্রামপাড়া এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে মাদক ব্যবসা ও চাঁদাবাজি করে আসছে এই জামাল উদ্দিন। বিশেষ করে বেতুয়া ও দাঁতমারা বনবিটের সরকারী জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করে আবার তা বিক্রি করে তার মাসিক আয় ছিলো ৫ লাখ টাকা। চাঁদা আদায়ের বিস্তর অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। যখন তখন সশস্ত্র মহড়া দিয়ে ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি করে জামাল উদ্দিন। এই জামালের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির ভয়ংকর চিত্র তুলে ধরেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

সুত্র জানায়, বেতুয়া ও দাঁতমারার বনবিভাগের সরকারী অফিসগুলোতে আথিপত্য ধরে রাখতে এলাকায় প্রায়ই নিরীহ মানুষদের মারধর করতো জামাল। বছরের পর বছর এখানকার এই গডফাদার জামাল উদ্দিন গ্রুপ ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন।