Dhaka ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশিদের জন্য কঠোর ভিসা নীতি আরোপ করেছে আরব আমিরাত

মুহাম্মদ এরশাদুল হক, আরব আমিরাত থেকে : বাংলাদেশিদের জন্য কঠোর ভিসা নীতি আরোপ করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। আরব আমিরাত সরকার ভিজিট ভিসা, আনস্কিলড লেবার ভিসা এবং পার্টনার ভিসা প্রদানে কঠোর শর্ত যুক্ত করে দিয়েছে। দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের বিরুদ্ধে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়া এবং বসবাসের লিঙ্গ পরিবর্তন সনদ জালিয়াতিসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়েছে। এই প্রবণতা ঠেকাতে কঠোর হচ্ছে দেশটি। বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিসা কঠোরভাবে কঠোর করা হয়েছে।
এদিকে বর্তমানে বাংলাদেশিদের জন্য ভিজিট ভিসা অনেকটাই বন্ধ রয়েছে। ভিজিট ভিসার জন্য আবেদন করলে ৮০ শতাংশ আবেদন রিজেক্ট হচ্ছে। কেউ কেউ ভিজিট পাওয়ার পর দুবাই ঢোকার চেষ্টা করলেও তাদের অনেককেই নানা কারণ দেখিয়ে এয়ারপোর্ট থেকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। এমনটা চলতে থাকলে শ্রম বাজারে ব্যাপকভাবে ক্ষতির আশঙ্কা করছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। এব্যাপারে দুবাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন বলেন, আরব আমিরাতে ভিজিট ভিসায় আসা সহজ না। এখন থেকে যারা আমিরাতে আসবেন তাদেরকে ভিজিট ভিসা পেয়ে এয়ারপোর্টে ৩ হাজার দেরহাম বা সমপরিমাণ ডলার পাশাপাশি আসা-যাওয়ার টিকেট সঙ্গে রাখতে হবে।
তিনি বলেন, ভিজিট ভিসায় এসে যার কাছে অবস্থান করবেন তার পরিচয় পর্ব এয়ারপোর্টে শো করতে হবে। তবে তিনি প্রবেশ করতে পারবেন। অন্যথায় এসব কাগজপত্র দেখাতে অপারগতা হলে এয়ারপোর্ট থেকে দেশে ফেরত যেতে হবে। তিনি আরও বলেন, যারা ব্যবসা-বাণিজ্য করার লক্ষ্যে ভিজিট ভিসায় আমিরাতে আসেন তারা আমিরাতে এসে ব্যবসায়ী লাইসেন্স বানিয়ে ঐ লাইসেন্সের উপর ভিসার আবেদন করলে আগে কমপক্ষে ৩টি ভিসা পাওয়া যেত। এখন সে ক্ষেত্রে ২টি কমিয়ে ১টি করা হয়েছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

কারাগার থেকে পালানো দুই নারী জঙ্গি গ্রেপ্তার

বাংলাদেশিদের জন্য কঠোর ভিসা নীতি আরোপ করেছে আরব আমিরাত

Update Time : ০৮:৫৪:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩ জুন ২০২৪

মুহাম্মদ এরশাদুল হক, আরব আমিরাত থেকে : বাংলাদেশিদের জন্য কঠোর ভিসা নীতি আরোপ করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। আরব আমিরাত সরকার ভিজিট ভিসা, আনস্কিলড লেবার ভিসা এবং পার্টনার ভিসা প্রদানে কঠোর শর্ত যুক্ত করে দিয়েছে। দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের বিরুদ্ধে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়া এবং বসবাসের লিঙ্গ পরিবর্তন সনদ জালিয়াতিসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়েছে। এই প্রবণতা ঠেকাতে কঠোর হচ্ছে দেশটি। বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিসা কঠোরভাবে কঠোর করা হয়েছে।
এদিকে বর্তমানে বাংলাদেশিদের জন্য ভিজিট ভিসা অনেকটাই বন্ধ রয়েছে। ভিজিট ভিসার জন্য আবেদন করলে ৮০ শতাংশ আবেদন রিজেক্ট হচ্ছে। কেউ কেউ ভিজিট পাওয়ার পর দুবাই ঢোকার চেষ্টা করলেও তাদের অনেককেই নানা কারণ দেখিয়ে এয়ারপোর্ট থেকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। এমনটা চলতে থাকলে শ্রম বাজারে ব্যাপকভাবে ক্ষতির আশঙ্কা করছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। এব্যাপারে দুবাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল বি এম জামাল হোসেন বলেন, আরব আমিরাতে ভিজিট ভিসায় আসা সহজ না। এখন থেকে যারা আমিরাতে আসবেন তাদেরকে ভিজিট ভিসা পেয়ে এয়ারপোর্টে ৩ হাজার দেরহাম বা সমপরিমাণ ডলার পাশাপাশি আসা-যাওয়ার টিকেট সঙ্গে রাখতে হবে।
তিনি বলেন, ভিজিট ভিসায় এসে যার কাছে অবস্থান করবেন তার পরিচয় পর্ব এয়ারপোর্টে শো করতে হবে। তবে তিনি প্রবেশ করতে পারবেন। অন্যথায় এসব কাগজপত্র দেখাতে অপারগতা হলে এয়ারপোর্ট থেকে দেশে ফেরত যেতে হবে। তিনি আরও বলেন, যারা ব্যবসা-বাণিজ্য করার লক্ষ্যে ভিজিট ভিসায় আমিরাতে আসেন তারা আমিরাতে এসে ব্যবসায়ী লাইসেন্স বানিয়ে ঐ লাইসেন্সের উপর ভিসার আবেদন করলে আগে কমপক্ষে ৩টি ভিসা পাওয়া যেত। এখন সে ক্ষেত্রে ২টি কমিয়ে ১টি করা হয়েছে।