Dhaka ০৯:৩৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বান্দরবানের রুমা ও থানচিতে যৌথ অভিযানে ১৮ নারীসহ গ্রেফতার ৫৫

  • Reporter Name
  • Update Time : ১০:১১:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০২৪
  • 19

বান্দরবান প্রতিনিধি: পার্বত্য জেলা বান্দরবানের রুমা ও থানচিতে ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় নারীসহ মোট ৫৬ জনকে এ পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা সবাই সশস্ত্র সংগঠন কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ।

৮ এপ্রিল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে গ্রেফতার ৪৯ জনকে তিনটি বাসে করে বান্দরবান সদর থানায় নিয়ে আসা হয়। এর আগে যৌথবাহিনীর অভিযানে রুমা উপজেলার বেথেল পাড়া থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। অভিযান পরিচালনাকালে তাদের কাছ থেকে সাতটি দেশি বন্দুক, ২০ রাউন্ড গুলি, কেএনএফের পোশাক, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ব্যবহৃত ল্যাপটপ, দুই জোড়া বুট, একটি ছুরি ও বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

এসব তথ্য নিশ্চিত করে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হোসাইন মো. রায়হান কাজেমী জানান, রুমা ও থানচিতে হামলার ঘটনায় করা মামলায় ৪৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এরআগে সদরের শ্যারণ পাড়া থেকে কেএনএফের প্রধান সমন্বয়ক চেওসিম বমকে (৫৫) আটক করা হয়। গতকাল ৭ এপ্রিল রোববার সংবাদ সম্মেলনে র্যাব জানায়, বান্দরবানে প্রথম কুকি-চিন ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশান নামে একটি সংগঠন গঠন করা হয়েছিল। যেখান থেকে যাত্রা শুরু করে ধীরে ধীরে কেএনএফ বর্তমান অবস্থায় পৌঁছায়। সেই সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সমন্বয়ক ছিলেন চেওসিম বম। তার বাড়িতে বসেই নাথান বম ও জঙ্গি নেতা শামীম মাহফুজের জঙ্গি প্রশিক্ষণের চুক্তি হয়।

এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে কেএনএফের জন্য তিনি টাকা সংগ্রহ করে আসছিলেন। গত ২ ও ৩ এপ্রিল রুমা ও থানচিতে ব্যাংক লুট এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১৪টি অস্ত্র লুট করে কেএনএফ। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত আটটি মামলা করা হয়েছে।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

রাজধানীর মতিঝিলে লক্ষ্মী নারায়ণ জিউ মন্দিরের ২০০ কোটি টাকার সম্পত্তি উদ্ধার

বান্দরবানের রুমা ও থানচিতে যৌথ অভিযানে ১৮ নারীসহ গ্রেফতার ৫৫

Update Time : ১০:১১:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ এপ্রিল ২০২৪

বান্দরবান প্রতিনিধি: পার্বত্য জেলা বান্দরবানের রুমা ও থানচিতে ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় নারীসহ মোট ৫৬ জনকে এ পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা সবাই সশস্ত্র সংগঠন কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ।

৮ এপ্রিল সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে গ্রেফতার ৪৯ জনকে তিনটি বাসে করে বান্দরবান সদর থানায় নিয়ে আসা হয়। এর আগে যৌথবাহিনীর অভিযানে রুমা উপজেলার বেথেল পাড়া থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। অভিযান পরিচালনাকালে তাদের কাছ থেকে সাতটি দেশি বন্দুক, ২০ রাউন্ড গুলি, কেএনএফের পোশাক, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে ব্যবহৃত ল্যাপটপ, দুই জোড়া বুট, একটি ছুরি ও বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

এসব তথ্য নিশ্চিত করে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হোসাইন মো. রায়হান কাজেমী জানান, রুমা ও থানচিতে হামলার ঘটনায় করা মামলায় ৪৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এরআগে সদরের শ্যারণ পাড়া থেকে কেএনএফের প্রধান সমন্বয়ক চেওসিম বমকে (৫৫) আটক করা হয়। গতকাল ৭ এপ্রিল রোববার সংবাদ সম্মেলনে র্যাব জানায়, বান্দরবানে প্রথম কুকি-চিন ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশান নামে একটি সংগঠন গঠন করা হয়েছিল। যেখান থেকে যাত্রা শুরু করে ধীরে ধীরে কেএনএফ বর্তমান অবস্থায় পৌঁছায়। সেই সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সমন্বয়ক ছিলেন চেওসিম বম। তার বাড়িতে বসেই নাথান বম ও জঙ্গি নেতা শামীম মাহফুজের জঙ্গি প্রশিক্ষণের চুক্তি হয়।

এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে কেএনএফের জন্য তিনি টাকা সংগ্রহ করে আসছিলেন। গত ২ ও ৩ এপ্রিল রুমা ও থানচিতে ব্যাংক লুট এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১৪টি অস্ত্র লুট করে কেএনএফ। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত আটটি মামলা করা হয়েছে।