Dhaka ০১:০৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বর্তমান সরকার সকল সম্প্রদায়ের অধিকার সুরক্ষায় বদ্ধপরিকর : ফরিদ মাহমুদ

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৮:৪২:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩
  • 2756

সূর্যোদয় প্রতিবেদক : নগর আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ মাহমুদ বলেছেন, প্রাচীন বারুণী উৎসব চট্টগ্রামে সাম্যের বার্তা ছড়াচ্ছে। চলমান প্রকল্পের কাজ শেষ হয়ে গেলে আগামীতে বারুণী স্নান উদযাপন পরিষদের উৎসব আয়োজন আরো জমজমাট হবে। বর্তমান সরকার সকল সম্প্রদায়ের অধিকার সুরক্ষায় বদ্ধপরিকর। নগরের ১১ নম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে দুইদিনব্যাপী রানী রাসমনি বারুণী স্নানঘাটে আয়োজিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
এসময় নগর আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ মাহমুদ প্রাচীন এই উৎসবের নির্দিষ্ট স্থান চিহ্নিত করে উদযাপন পরিষদের অনুকূলে স্থায়ী অনুমোদন দেওয়ার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান। সর্বজনীন মহাতীর্থ বারুণী স্নান উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে সভায় সভাপতিত্ব করেন পরিষদের সভাপতি ডা. বিজন কান্তি দেবনাথ। সাধারণ সম্পাদক মিলন দাশের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন সুরথ কুমার চৌধুরী, নেছার আহম্মেদ, শেখ নাছির আহমেদ, আশরাফুল গনি, দেলোয়ার হোসেন দেলু, সুভাষ ধর, সদানন্দ ভট্টাচার্য, বাবুল দেবনাথ, বাবুল নাথ, অলক দাশ, ঝন্টু নাথ, পিকলু চৌধুরী, লক্ষণ, মিনু রানী দেবী, ডা. সুমন তালুকদার, বাবুল দাশ, লিটন দাশ, রঞ্জিত নাথ, লিখন দেবনাথ, সুধীর দাশ, রাজিব ধর, জনি শীল শিবু, অর্জুন, মিলন দাশ, সাজিব, সৌরভ, সবুজ প্রমুখ।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

https://dainiksurjodoy.com/wp-content/uploads/2023/12/Green-White-Modern-Pastel-Travel-Agency-Discount-Video5-2.gif

নিউইয়র্কে সেইভ দ্য পিপল’র উদ্যোগে হালাল খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বর্তমান সরকার সকল সম্প্রদায়ের অধিকার সুরক্ষায় বদ্ধপরিকর : ফরিদ মাহমুদ

Update Time : ০৮:৪২:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ মার্চ ২০২৩

সূর্যোদয় প্রতিবেদক : নগর আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ মাহমুদ বলেছেন, প্রাচীন বারুণী উৎসব চট্টগ্রামে সাম্যের বার্তা ছড়াচ্ছে। চলমান প্রকল্পের কাজ শেষ হয়ে গেলে আগামীতে বারুণী স্নান উদযাপন পরিষদের উৎসব আয়োজন আরো জমজমাট হবে। বর্তমান সরকার সকল সম্প্রদায়ের অধিকার সুরক্ষায় বদ্ধপরিকর। নগরের ১১ নম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে দুইদিনব্যাপী রানী রাসমনি বারুণী স্নানঘাটে আয়োজিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
এসময় নগর আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ মাহমুদ প্রাচীন এই উৎসবের নির্দিষ্ট স্থান চিহ্নিত করে উদযাপন পরিষদের অনুকূলে স্থায়ী অনুমোদন দেওয়ার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান। সর্বজনীন মহাতীর্থ বারুণী স্নান উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে সভায় সভাপতিত্ব করেন পরিষদের সভাপতি ডা. বিজন কান্তি দেবনাথ। সাধারণ সম্পাদক মিলন দাশের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন সুরথ কুমার চৌধুরী, নেছার আহম্মেদ, শেখ নাছির আহমেদ, আশরাফুল গনি, দেলোয়ার হোসেন দেলু, সুভাষ ধর, সদানন্দ ভট্টাচার্য, বাবুল দেবনাথ, বাবুল নাথ, অলক দাশ, ঝন্টু নাথ, পিকলু চৌধুরী, লক্ষণ, মিনু রানী দেবী, ডা. সুমন তালুকদার, বাবুল দাশ, লিটন দাশ, রঞ্জিত নাথ, লিখন দেবনাথ, সুধীর দাশ, রাজিব ধর, জনি শীল শিবু, অর্জুন, মিলন দাশ, সাজিব, সৌরভ, সবুজ প্রমুখ।