Dhaka ০১:১৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লক্ষ্মীপুরের করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মাস্ক হাতে রাস্তায় পুলিশ সুপার

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৩:০৬:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ এপ্রিল ২০২১
  • 521

বিজয়ের আলো ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) ড. এএইচএম কামরুজ্জামান পথচারীদের মাস্ক পড়িয়ে দিয়েছেন। নিজে উপস্থিত থেকে শহরের উত্তর তেমুহনীসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে লিফলেট ও মাইকিং করে প্রচারণা চালিয়েছেন। পথচারীদের উদ্দেশ্যে সচেতনতামূলক পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

রবিবার (৪ এপ্রিল) বিকেলে ‘করোনা ভাইরাসে আতঙ্ক নয়, দরকার সচেতনতা ও সতর্কতা’ এ স্লোগানে জনগণকে সচেতন করার লক্ষ্যে জেলা পুলিশ রাস্তায় নেমেছে।

জেলা পুলিশ প্রাশাসন জানায়, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ১১ দফা নির্দেশনা দিয়েছে। সে লক্ষ্যে মাস্ক বিতরণ, লিফলেট বিতরণ, নিয়মিত মাইকিং ও বিভিন্ন স্থানে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। লক্ষ্মীপুরের কাঁচা বাজারগুলো উম্মুক্ত এলাকায় স্থানান্তর করার চেষ্টা করা হচ্ছে। কোনভাবেই কোথাও যেন মানুষের গাদাগাদি জমায়েত না হয় সে লক্ষ্যে পুলিশ কাজ করছে। লকডাউনে প্রত্যেকটি শফিংমল বন্ধ থাকবে। কেউ যদি সরকারি নির্দেশনা না মানে তাহলে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পথচারীসহ জনগণকে সচেতন করতে তাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ, লিফলেট বিতরণসহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে পুলিশের প্রচারণা অব্যাহত রাখা হবে।

লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার ড. এএইচএম কামরুজ্জামান বলেন, সরকারি নির্দেশনা মানতে জনগণের জন্য পুলিশী প্রচারণা অব্যাহত থাকবে। লকডাউনে কাঁচাবাজর উম্মুক্ত স্থানে নেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। এতে বাজারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সুবিধা হবে। গণপরিবহণ যেন না চলতে পারে সে ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিপনী বিতানসহ শফিংমলগুলো বন্ধ থাকবে। কেউ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করলে, তাদেরকে তা মেনে চলতে পুলিশ কাজ করবে।

Tag :

লক্ষ্মীপুরের করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মাস্ক হাতে রাস্তায় পুলিশ সুপার

Update Time : ০৩:০৬:০১ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ এপ্রিল ২০২১

বিজয়ের আলো ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) ড. এএইচএম কামরুজ্জামান পথচারীদের মাস্ক পড়িয়ে দিয়েছেন। নিজে উপস্থিত থেকে শহরের উত্তর তেমুহনীসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে লিফলেট ও মাইকিং করে প্রচারণা চালিয়েছেন। পথচারীদের উদ্দেশ্যে সচেতনতামূলক পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

রবিবার (৪ এপ্রিল) বিকেলে ‘করোনা ভাইরাসে আতঙ্ক নয়, দরকার সচেতনতা ও সতর্কতা’ এ স্লোগানে জনগণকে সচেতন করার লক্ষ্যে জেলা পুলিশ রাস্তায় নেমেছে।

জেলা পুলিশ প্রাশাসন জানায়, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ১১ দফা নির্দেশনা দিয়েছে। সে লক্ষ্যে মাস্ক বিতরণ, লিফলেট বিতরণ, নিয়মিত মাইকিং ও বিভিন্ন স্থানে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। লক্ষ্মীপুরের কাঁচা বাজারগুলো উম্মুক্ত এলাকায় স্থানান্তর করার চেষ্টা করা হচ্ছে। কোনভাবেই কোথাও যেন মানুষের গাদাগাদি জমায়েত না হয় সে লক্ষ্যে পুলিশ কাজ করছে। লকডাউনে প্রত্যেকটি শফিংমল বন্ধ থাকবে। কেউ যদি সরকারি নির্দেশনা না মানে তাহলে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পথচারীসহ জনগণকে সচেতন করতে তাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ, লিফলেট বিতরণসহ স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে পুলিশের প্রচারণা অব্যাহত রাখা হবে।

লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার ড. এএইচএম কামরুজ্জামান বলেন, সরকারি নির্দেশনা মানতে জনগণের জন্য পুলিশী প্রচারণা অব্যাহত থাকবে। লকডাউনে কাঁচাবাজর উম্মুক্ত স্থানে নেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। এতে বাজারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সুবিধা হবে। গণপরিবহণ যেন না চলতে পারে সে ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিপনী বিতানসহ শফিংমলগুলো বন্ধ থাকবে। কেউ সরকারি নির্দেশনা অমান্য করলে, তাদেরকে তা মেনে চলতে পুলিশ কাজ করবে।